মালয়েশিয়া উচ্চশিক্ষার সুবিধা- মালয়েশিয়া পড়াশোনা ও বসবাসের সুবিধা

Study in Australia with Scholarship apply with Global Assistant

উচ্চ শিক্ষার জন্য কেন মালয়েশিয়া তে যাবেন?

বাইরের দেশে পরালেখার কথা ভাবলে সাধারণত ছাত্র ছাত্রীরা কানাডা, আমেরিকা কিংবা ইউরপের কোন দেশের কথা ভাবে। অনেক ছাত্র ছাত্রীদের উচ্চ শিক্ষার জন্য প্রথম পছন্দ মালয়েশিয়া। কিন্তু কেন? উচ্চ শিক্ষার জন্য মালয়েশিয়া চমতকার একটি দেশ। রয়েছে উচ্চ শিক্ষার জন্য লোভনিয় সুযোগ। প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, নতুনত্ব এবং উদ্ভাবন সম্রদ্ধ একটি দেশ মালয়েশিয়া। উচ্চ শিক্ষার জন্য বিশ্বের হাজার হাজার শিক্ষার্থী দের গন্তব্য মালয়েশিয়া। মালয়েশিয়া তে অবস্থানরত শিক্ষার্থী দের মতামত অনুসারে, উচ্চ শিক্ষার জন্য মালয়েশিয়া অসাধারণ।

 

Best Private Universities in Malaysia 

আজকে আমরা জানব কেন উচ্চ শিক্ষার জন্য আপনি মালয়েশিয়াতে পড়তে যাবেন।

মালয়েশিয়া উচ্চশিক্ষার ৮ টি সুবিধা আলোচনা করা হলঃ

১। নির্মল আবহাওয়া

উচ্চ শিক্ষার জন্য মালয়েশিয়া প্রথম পছন্দ হওয়ার একটি কারণ হলো সুন্দর আবহাওয়া। যারা খুব বেশি ঠাণ্ডা এবং খুব বেশি গরম পছন্দ করেন না, তাদের জন্য মালয়েশিয়া সব চেয় ভালো একটি দেশ। উষ্ণ তাপমাত্রার জন্য মালয়েশিয়া তুলনা হীন। প্রায় সারা বছরই তাপমাত্রা উষ্ণ থাকে। এখানে অতিরিক্ত গরম থাকে না বল্লেই চলে। এমনকি সমুদ্রতীরে আপনি ছুটির দিন উপভোগ করতে পারবেন।  গ্রীষ্ম কালে কুয়ালালামপুর এবং মালাক্কা তে আবহাওয়া উষ্ণ থাকে। মালয়েশিয়া এমন একটি দেশ যেখানে তাপমাত্রা কখনই ২০ এর নিচে আসে না। আবার অন্য দিকে তাপমাত্রা ৩০ এর উপরেও উঠে না। আমরা সবাই জানি যে ইউরোপ এর দেশ গুলোতে বছরের বেশির ভাগ সময় অতিরিক্ত ঠাণ্ডা থাকে। কিন্তু মালয়েশিয়া তে এরকম অতিরিক্ত ঠাণ্ডা কখনওই দেখা যায় না।

২। বাংলাদেশ মালয়েশিয়া দূরত্ব

বাংলাদেশ থেকে যারা মালয়েশিয়া তে পড়াশুনার জন্য আসে, তারা সব চেয়ে বেশি যে ব্যপার টি প্রাধান্য দেন তা হলো বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়ার দূরত্ব। যারা মালয়েশিয়া তে বাংলাদেশ থেকে আসেন তারা মাত্র তিন বা চার ঘণ্টায় পৌছে যান। অনেক সময় মাত্র আড়াই ঘণ্টা ও লাগে। যদিও তা এয়ারলাইন এবং ফ্লাইট এর গতির উপর কিছু ক্ষেত্রে নির্ভর করে। তাছাড়া বাংলাদেশি থেকে মালয়েশিয়ার এয়ার  টিকিট এর দাম ও তুলনা মুলক ভাবে কম যা ছাত্র ছাত্রদের জন্য খুব ভালো একটি খবর। সাশ্রয়ী খরচে ছাত্র ছাত্রীরা মালয়েশিয়া পৌছে যেতে পারবে।

৩। সুলভ খাবার খরচ

বেশিভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায় বাইরের দেশে পড়াশুনা করতে আসা ছাত্র ছাত্রীদের পড়াশুনার পাশাপাশি চাকুরি করতে হয়। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই যার প্রধান কারণ খাবার খড়চ। কিছু ক্ষেত্রে ছাত্র ছাত্রী দের মা বাবা  দেশ থেকে তাদের পরাশুনার সাথে খাবার খড়চ ও পাঠায়। কিন্তু মালয়েশিয়া তে খাবার খড়চ খুবই কম। ইউরেশীয় দেশ গুলর তুলনায় মালয়েশিয়া তে পড়তে আসা ছাত্র ছাত্রীরা কম খড়চে খাবারের সুযোগ পেয়ে থাকে। তাছাড়া মালয়েশিয়া তে খাবারের মান নিয়ে চিন্তা নেই। কারণ এখানে খাবার ১০০% হালাল। এবং খাবারের দাম খুবই কম। অন্যদিকে, মালয়েশিয়া তে সারা বছরই সব রকম ফল পাওয়া যায়। বাংলাদেশে আপনি প্রিয় ফল পাবেন একটি ঋতুতে। কিন্তু মালয়েশিয়া তে আপনার প্রিয় ফল আম, কাঠাল, কমলা, আঙুর, নাশপাতি পাবেন সারা বছর।

৪। সেরা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ

মালয়েশিয়ার অনেক বিশ্ববিদ্যালয়ই বিশ্বের সেরা বিশ্ববিদ্যালয় গুলর তালিকাভুক্ত। যার অধিকাংশই সেরা মানের শিক্ষার সুযোগ নিশ্চয় করে। আমেরিকা, ইউরপের অনেক বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশাপাশি মালয়েশিয়ান বিশ্ববিদ্যালয় গুলো সুনাম অর্জন করেছে। মালয়েশিয়ার সেরা বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভারসিটি অফ মালায়া কিউ এস র‍্যনকিং এ ৬৫ তম স্থান অর্জন করেছে। তাছাড়া মালয়েশিয়া তে আছে বিশ্বমানের বিশ্ববিদ্যালয়। মালয়েশিয়ার টেইলর’স ইউনিভার্সিটি এবং ইউসিএসাই ইউনিভার্সিটি যা কিউএস র‍্যনকিং এ রয়েছে। বিশ্বসেরা লিমককউইং ইউনিভার্সিটি মালয়েশিয়া তে। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের ছাত্র ছাত্রীরা আসে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার জন্য।

৫। আইইএলটিএস ছাড়া ভিসা সুবিধা

ছাত্র ছাত্রীরা যারা মালয়েশিয়ান কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য আবেদন করবে, তাদের আইইএলটিএস স্কোর প্রয়জন নেই। ইউরোপ বা আমেরিকান দেশ গুলোতে উচ্চ শিক্ষার জন্য যেমন আইইএলটিএস পরিক্ষা আবশ্যক, মালয়েশিয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে চাইলে আইইএলটিএস পরিক্ষা দেয়ার প্রয়োজন পরে না। তবে শিক্ষার্থী দের কে ইংরেজি কোর্স সম্পন্ন করতে হয়। এক্ষেত্রে শিক্ষার্থী কে আলাদা ফি দিতে হবে। যারা আইইএলটিএস পরিক্ষায় অংশ নেয়নি, তাদের জন্য এটি খুব ভালো সূযোগ।

৬। ডিপেন্ডেবল ভিসা

শিক্ষার্থী দের জন্য অনেক বড় একটি সুযোগ রয়েছে তাদের পরিবার বা স্বামী স্ত্রী কে সাথে নিয়ে যাওয়ার। এক্ষেত্রে মালয়েশিয়া ডিপেন্ডেবল ভিসা চালু করেছে। তাছাড়া তাদের পরিবার কোন রকম খড়চ ছাড়াই থাকতে পারবে। তবে শুধুমাত্র ভিসা রিনিউ করতে হবে। তারা সর্বোচ্চ এক বছর মালয়েশিয়া তে থাকতে পারবে।  ডিপেন্ডের কে অভিবাসন বিভাগ থেকে আনুমদন নিতে হবে। ভিসা এপ্লিকেশন সেন্টার থেকে প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। আবেদনকারি কে আসল ডডকুমেন্ট প্রদান করতে হবে। আবেদনকারী ট্রাভেল এজেন্সির সহায়তা নিতে পারে।

৭। স্বাচ্ছন্দ্যময় ভ্রমনের সুযোগ 

পরাশনার জন্য শিক্ষার্থীদের পছন্দ ভ্রমণ স্পটে পরিপুরন দেশ। যেখানে তারা পরাশুনার ফাকে আনন্দ ময় সময় কাটাতে পারবে। পৃথিবীর অনেক সুন্দর ভ্রমনের জায়গাগুলো  মালয়েশিয়া তে অবস্থিত। ভ্রমনের জন্য প্রিয় জায়গা থাইল্যান্ড, সিংগাপুর এবং ইন্দোনেশীয়া মালয়েশিয়া থেকে মাত্র তিন ঘণ্টা দুরত্তে অবস্থিত।  শিক্ষার্থীরা পরাশুনার ফাকে চাইলেই ঘুরে আসতে পারে। অন্য দেশ ছাড়া ও শিক্ষার্থীরা সৈকত এবং দ্বীপে ভ্রমন করতে পারে। ছুটিরদিনে শিক্ষার্থীরা লংকাউই, ব্যংকক, বালি, ফুকেত, সিংগাপুরে ঘুরতে যেতে পারে। মালয়েশিয়ার পেত্রনাস টুইন টাওয়ার বিশ্ববিখ্যাত।

 

৮। নিরাপদ এবং সহজ প্রক্রিয়া 

সাধারণত দেখা যায় উচ্চ শিক্ষার জন্য আবেদন করলে তা অনেক ব্যয় বহুল এবং সময় নেয় প্রচুর। কিন্তু মালয়েশিয়া তে পরাশুনার জন্য আবেদন প্রক্রিয়া সহজ এবং সময় কম লাগে। তাছাড়া শিক্ষার্থীরা নিরাপদ এবং শান্তি পুরন দেশ পছন্দ করে। মালয়েশিয়া রাজনিতি এবং অপরাধ মুক্ত। শিক্ষার্থীরা নিরাপদে পরাশুনা করতে পারে। ভৌগলিক দিক থেকে মালয়েশিয়াতে প্রাকৃতিক দূরযোগ মুক্ত এবং খুব কমই দেখা যায়।

মালয়েশিয়ার উদ্দেশ্যে শিক্ষার্থী দের মাত্র তিন থেকে চার সপ্তাহ লাগে ভিসা প্রক্রিয়া হতে। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই তা সফল হয়। আশা করি আমরা এই আরতিকেলটি আপনার সব প্রশ্নের উত্তর দিতে প্রেরেছি। মালয়েশিয়া উচ্চশিক্ষার ৮ টি সুবিধা উপরে আলোচনা করা হল।

Have question about this university?

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    Reviews & Testimoinal

    Apply Online